... োগ বলতে করোনাভাইরাস রোগ-২০১৯-এ আক্রান্ত রোগীর স্বাভাবিক স্বাস্থ্যোদ্ধারে...
 

দীর্ঘস্থায়ী করোনাভাইরাস রোগ বলতে করোনাভাইরাস রোগ-২০১৯-এ আক্রান্ত রোগীর স্বাভাবিক স্বাস্থ্যোদ্ধারের পরে আবির্ভূত হওয়া বা বজায় থাকা দীর্ঘস্থায়ী পরিণামোপসর্গসমূহ দ্বারা বৈশিষ্ট্যায়িত একটি রোগাবস্থাকে বোঝায়। এটিকে দীর্ঘস্থায়ী কোভিড (Long COVID), কোভিড-১৯-পরবর্তী সংলক্ষণ (post-COVID-19 syndrome), কোভিড-১৯-পরবর্তী প্রকট পরিণামোপসর্গসমূহ (post-acute sequelae of COVID-19 বা PASC), দীর্ঘস্থায়ী কোভিড সংলক্ষণ (chronic COVID syndrome বা CCS), বহুদূর টানা কোভিড (long-haul COVID), ইত্যাদি বিভিন্ন নামে ডাকা হতে পারে।[1] [2] [3]

দীর্ঘস্থায়ী করোনাভাইরাস রোগ দেহের প্রায় সমস্ত অঙ্গতন্ত্রের উপরে ক্রিয়াশীল হতে পারে এবং পরিণামোপসর্গের জন্ম দিতে পারে, যাদের মধ্যে রয়েছে শ্বসনতন্ত্রীয় বিকার, স্নায়ুতন্ত্রীয় ও স্নায়ু-সংজ্ঞানাত্মক বিকার, মানসিক স্বাস্থ্য বিকার, বিপাকীয় বিকার, হৃৎবাহ বিকার, জঠরান্ত্রীয় বিকার, অস্বস্তিভাব, অবসন্নতা, পেশী-কঙ্কালীয় ব্যথা ও রক্তাল্পতা।[4] সাধারণত বিভিন্ন ধরনের লক্ষণ-উপসর্গ এ প্রসঙ্গে আলোচিত হয়ে থাকে, যেমন অবসন্নতা, মাথাব্যথা, শ্বাসকষ্ট, ঘ্রাণহানি (Anosmia), ঘ্রাণ অপবেদন (Parosmia), পেশীর দুর্বলতা, হালকা জ্বর ও সংজ্ঞানাত্মক ক্রিয়াবিকার।[5]

লক্ষণ-উপসর্গগুলির সঠিক প্রকৃতি এবং কতজন ব্যক্তি এরূপ দীর্ঘমেয়াদী লক্ষণ-উপসর্গ অনুভব করে থাকেন, তা অজানা এবং অধীত জনসমষ্টি, রোগাবস্থার সংজ্ঞা ও গবেষণার স্থায়িত্বকালের উপরে ভিত্তি করে এগুলি ভিন্ন ভিন্ন হয়ে থাকে। যুক্তরাজ্যের জাতীয় পরিসংখ্যান কার্যালয় (অফিস ফর ন্যাশনাল স্ট্যাটিস্টিকস) একটি জরিপে প্রাক্কলন করে যে পরীক্ষার দ্বারা নিশ্চিতভাবে প্রমাণিত সার্স-কোভি-২ ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের প্রায় ১৩.৭% ১২ সপ্তাহের বেশি সময় ধরে উপরোক্ত এক বা একাধিক লক্ষণ-উপসর্গ অনুভব করেছেন।[6]

যদিও দীর্ঘস্থায়ী করোনাভাইরাস রোগের বিভিন্ন দিক নিয়ে গবেষণা চলমান আছে,[7] [8] জানুয়ারি ২০২১-এর হিসাব অনুযায়ী, এই অসুস্থতা বা রোগাবস্থাটির সংজ্ঞাটি এখনও সুস্পষ্ট নয় এবং এটি কীভাবে কাজ করে, তা নিয়ে শীঘ্রই সিদ্ধান্তে উপনীত হওয়া সম্ভব নয়। কিছু কিছু দেশ ও এলাকার স্বাস্থ্যব্যবস্থাতে এই ধরনের রোগীদের সেবার জন্য ব্যবস্থা করা হয়েছে এবং এই উদ্দেশ্যে বিশেষায়িত চিকিৎসাকেন্দ্র বা ক্লিনিক প্রতিষ্ঠা ও পরামর্শদানের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।[9] [10] [11] তা সত্ত্বেও অসুস্থতাটি ভালোভাবে এখনও চরিত্রায়িত করা হয়নি, এটি কীভাবে কাজ করে তা জানা সম্ভব হয়নি, এটি কীভাবে নির্ণয় করতে হবে, সে ব্যাপারে কোনও নির্দিষ্ট স্থিতিশীল মানদণ্ড নেই। তাই এটিকে এক ধরনের অজ্ঞাত কারণজাত বা স্বয়ম্ভূত রোগ হিসেবে গণ্য করা হয় এবং এটি নির্ণয়ের জন্য বর্জনমূলক রোগনির্ণয় পদ্ধতি অবলম্বন করা হয়।

তথ্যসূত্র

  1. Baig AM (মে ২০২১)। "Chronic COVID syndrome: Need for an appropriate medical terminology for long-COVID and COVID long-haulers"। Journal of Medical Virology93 (5): 2555–2556। ডিওআই:10.1002/jmv.26624অবাধে প্রবেশযোগ্যপিএমআইডি 33095459 |pmid= এর মান পরীক্ষা করুন (সাহায্য) 
  2. Staff (১৩ নভেম্বর ২০২০)। "Long-Term Effects of COVID-19"Centers for Disease Control and Prevention। সংগ্রহের তারিখ ২৭ নভেম্বর ২০২০ 
  3. "Overview | COVID-19 rapid guideline: managing the long-term effects of COVID-19 | Guidance | NICE"National Institute for Health and Care Excellence। ১৮ ডিসেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ১৮ ডিসেম্বর ২০২০ 
  4. Al-Aly Z, Xie Y, Bowe B (জুন ২০২১)। "High-dimensional characterization of post-acute sequelae of COVID-19"। Nature594 (7862): 259–264। ডিওআই:10.1038/s41586-021-03553-9অবাধে প্রবেশযোগ্যপিএমআইডি 33887749 |pmid= এর মান পরীক্ষা করুন (সাহায্য) 
  5. CDC (১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "COVID-19 and Your Health"Centers for Disease Control and Prevention (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  6. "Prevalence of ongoing symptoms following coronavirus (COVID-19) infection in the UK: 1 April 2021"Office for National Statistics। ২০২১-০৪-০১। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৮-১৪ 
  7. Workshop on Post-Acute Sequelae of COVID-19 (Day 1)। NIH। 
  8. Workshop on Post-Acute Sequelae of COVID-19 (Day 2)। NIH। 
  9. "Mount Sinai Center for Post-COVID Care" 
  10. "Delhi's Post-Covid Clinic For Recovered Patients With Fresh Symptoms Opens" 
  11. "Post COVID-19 Rehabilitation and Recovery Program" 

বহিঃসংযোগ

  • ইউটিউবে Long Covid (21 October 2020). – UK Government film about long COVID.
  • "PHOSP"HomeUniversity of LeicesterThe Post-hospitalisation COVID-19 study (PHOSP-COVID) is a consortium of leading researchers and clinicians from across the UK working together to understand and improve long-term health outcomes for patients who have been in hospital with confirmed or suspected COVID-19. 




  Go to top  

This article is issued from web site Wikipedia. The original article may be a bit shortened or modified. Some links may have been modified. The text is licensed under "Creative Commons - Attribution - Sharealike" [1] and some of the text can also be licensed under the terms of the "GNU Free Documentation License" [2]. Additional terms may apply for the media files. By using this site, you agree to our Legal pages [3] [4] [5] [6] [7]. Web links: [1] [2]